Home / আচার / চাটনি ও আচার কি স্বাস্থ্যের জন্য ভালো না খারাপ?

চাটনি ও আচার কি স্বাস্থ্যের জন্য ভালো না খারাপ?

বিভিন্ন ধরণের আচার ও চাটনি এদেশের মানুষের খুবই প্রিয় খাবার। একেক অঞ্চলে একেক ধরণের আচারের রেসিপি পাওয়া যায়। যারা ডায়েট করছেন, তাদের বেশ উপকারে আসতে পারে আচার ও চাটনি। সঠিক উপায়ে তৈরি আচার যদি পরিমিত পরিমাণে খাওয়া হয়, তাহলে তা বেশ স্বাস্থ্যকর। এগুলো প্রাকৃতিক প্রোবায়োটিক হিসেবে কাজ করে।

কেন খাবেন আচার

আচার তৈরিতে ব্যবহার হয় ফল বা সবজি, লবণ, ভিনেগার ও বিভিন্ন মশলা। আচার এক ধরণের ফারমেন্টেড খাবার, যার প্রোবায়োটিক বৈশিষ্ট্য থাকায় তা স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী। মূলত অন্ত্রের ভালো ব্যাকটেরিয়ার উপকারে আসে প্রোবায়োটিক খাবারগুলো।

আচার কখন অস্বাস্থ্যকর?

সাধারণত আচারে দেওয়া লবণ বা তেলের কারণে একে অস্বাস্থ্যকর ধরা হতে পারে। অল্প পরিমাণে লবণ বা ঘানি ভাঙা তেল ব্যবহার করলে তা ক্ষতিকর হওয়ার কথা নয়। কিন্তু বর্তমানে অনেক বেশি রিফাইনড লবণ ও তেল ব্যবহার করে আচার তৈরি করা হয়, যাতে তার শেলফ লাইফ বেশিদিন হয় অর্থাৎ অনেকদিন সংরক্ষণ করা যায়। শুধু তাই নয়, বাজারের আচারগুলোতে বিভিন্ন রাসায়নিক দেওয়া হয়। এসব কারণে স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর হয়ে দাঁড়ায় আচার।

কি করে তৈরি করবেন আচার

আমাদের নানি-দাদিরা যেভাবে আচার তৈরি করতেন, আসলে সেই পদ্ধতিটিই ছিলো স্বাস্থ্যকর। অল্প পরিমাণে লবণ ব্যবহার করা, অর্গানিক তেল ব্যবহার করা এবং কোনো রকম রাসায়নিক ছাড়া আচার তৈরি করা উচিত। এই আচারে হজমের উন্নতি হয়। তবে খেতে হবে পরিমিত পরিমাণে।

চাটনি

সঠিক উপায়ে তৈরি করা হলে চাটনি সুপারফুডের মতো কাজ করে। কম পরিমাণে খাওয়া উচিত এই চাটনি। চাটনি খাওয়ার ফলে হজম ভালো হয়, ইনফ্লামেশন কমে। চাটনিতে সাধারণত ধনেপাতা, পুদিনা পাতা, তেঁতুল, রসুন, মরিচ, সরিষা ব্যবহার করা হয়। এ সবগুলো উপাদানই স্বাস্থ্যকর।

তবে চাটনি ও আচার দুটোই অস্বাস্থ্যকর হয়ে পড়ে অতিরিক্ত লবণ, তেল ও রাসায়নিক ব্যবহার করলে, অতিরিক্ত ঝাল-মশলা দিলে বা অতিরিক্ত খাওয়ার ফলে। আচার ও চাটনি দুটোই কম পরিমাণে খাওয়া উচিত। নয়তো পেট খারাপ হতে পারে।

About admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *